Home / মিডিয়া নিউজ / ‘দেবী’ বিতর্কে এবার হুমায়ূনের দুই স্ত্রী যা বললেন

‘দেবী’ বিতর্কে এবার হুমায়ূনের দুই স্ত্রী যা বললেন

বিনোদন ডেস্ক: প্রতিথযশা কথা সাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদের মেজো মেয়ে শীলা আহমেদ

অভিযোগ করেছেন, ’দেবী’ ছবিটি নির্মাণে লেখকের উত্তরাধিকারদের সবার কাছ থেকে

অনুমতি নেওয়া হয়নি। এ নিয়ে তিনি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তার কথা তুলে ধরেছেন।

তাহলে কার অনুমতি নিয়ে সিনেমাটি বানানো হয়েছে? সিনেমাটির প্রযোজক জয়া আহসানের সঙ্গে

যোগাযোগ করে পাওয়া যায়নি। তিনি বর্তমানে কলকাতায় শুটিংয়ে ব্যস্ত রয়েছেন। তবে হুমায়ূন আহমেদের দু্ই স্ত্রীর সঙ্গে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়েছে।

প্রথম স্ত্রী গুলতেকিন খান বলেন,’ আমার সঙ্গে এ নিয়ে কারও কোন কথা হয়নি। আমি যতদূর জানি ওরা যে চার ভাই-বোন আছে, হুমায়ূন আহমেদের সন্তান। তাদের সঙ্গেও কথা হয়নি। তবে বড় মেয়ে নোভার সঙ্গে জয়া আহসান অনেকদিন আগে কথা বলতে চেয়েছিল এ বিষয়ে। তারপর আর মনে হয় তিনি মনে করেননি নোভার সঙ্গে কথা বলার। তারপর তারা কীভাবে কী করেছে তা আমার জানা নেই।

এরপর শুনেছি এ বিষয়ে জাফর ইকবালের সঙ্গে জয়া আহসানের কথা হয়েছে। জাফর তো আর অনুমতি দেয়ার কেউ না। বিষয়টি আমাদের জানানো উচিত ছিল। একজন লোককে ব্যবহার করবেন আর তার পরিবার জানতে পর্যন্ত পারবে না। এটা আসলে মেনে নেয়া যায় না। অর্থনৈতিক ব্যাপার হচ্ছে পরের।’

তাহলে কি লেখকের দ্বিতীয় স্ত্রীর সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়েছে? অভিনেত্রী ও নির্মাতা মেহের আফরোজ শাওনের সঙ্গে এ বিষয়ে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন,’ গলার ব্যাথায় কিছুদিন ধরে ভুগছেন। খুব বেশি কথা বলতে পারবেন না। এই সিনেমার প্রযোজক ভালো বলতে পারবেন তিনি কার কাছ থেকে অনুমতি নিয়েছেন।

কপিরাইট নেওয়া বলেন আর যাই বলেন এটা প্রযোজকের দায়িত্ব। আমি যতটুকু জানি প্রযোজকের সবার কাছ থেকেই কপি রাইট নেওয়ার কথা। যদি কারো কারো কপিরাইট থেকে থাকে। প্রযোজক সেটা নিতে পেরেছেন কি না, কিংবা কার অনুমতি নেয়ার দরকার। সেটা প্রযোজকই খোলাসা করতে পারবেন। কারণ প্রযোজক তিনি আইনগত দিক অবশ্যই খেয়াল করে সিনেমাটা বানিয়েছেন। ’

১৯৮৫ সালে অবসর প্রকাশনী থেকে প্রকাশিত ’দেবী’ বইটির কোথাও কোনো স্বত্বের নাম উল্লেখ নাই বলে নিশ্চিত করে প্রকাশনা সংস্থাটির ব্যবস্থাপক শাহারুল ইসলাম সুমন।

Check Also

বেশি সৌন্দর্যই যে নায়িকার ক্যারিয়ার ধ্বংস করে দিলো

গায়ের রঙ সে যেমনই হোক পৃথিবীজুড়ে নায়িকাদের সৌন্দর্য একটা গুরুত্বপূর্ণ যোগ্যতা। আর দশজন নারী থেকে …

Leave a Reply

Your email address will not be published.